বিকাশ পিন লক হলে করণীয় কি তা জেনে নিন

বিকাশ পিন লক হলে করণীয় - আমাদের প্রায় প্রত্যকের নিজস্ব একটি বিকাশ অ্যাকাউন্ট রয়েছে। প্রতিবার বিকাশ অ্যাকাউন্ট লগইন করতে হলে বিকাশের পাঁচ ডিজিটের গোপন পিন দিয়ে তারপর লগইন করতে হয়।

বিকাশ পিন লক হলে করণীয়

বিকাশ অ্যাকাউন্ট লগইন করার সময় যদি ৩ বারের বেশী ভুল পিন কোড টাইপ করা হয় তাহলে আমাদের বিকাশ অ্যাকাউন্ট নিরাপত্তার স্বার্থে লক করে দেওয়া হয়। যার ফলে আমরা আমাদের এই বিকাশ অ্যাকাউন্ট দিয়ে কোন ধরনের টাকা-পয়সা লেনদেন করতে পারি না।সম্মানিত পাঠক, আজকে আমি আপনাদের সাথে বিকাশ পিন লক হলে করণীয় কি বা বিকাশ একাউন্টের পিন রিসেট দেওয়ার নিয়ম নিয়ে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করব। আজকের এই পোস্ট মনযোগ সহকারে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়ুন।

মোবাইল ব্যাংকিং বিকাশ নিয়ে কিছু কথা 

বাংলাদেশের বহুল জনপ্রিয় মোবাইল ব্যাংকিং সেবা হলো বিকাশ । বর্তমানে ৫ কোটির ও বেশী মানুষ বিকাশ ব্যবহার করে টাকা পয়সা লেনদেন করে থাকেন। ব্রাক ব্যাংকের একটি মোবাইল ব্যাংকিং হচ্ছে বিকাশ। বিকাশ ব্যবহারে অনেকেই বিভিন্ন ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হয়ে থাকে। বিশেষ করে অনেকেই বিকাশের পিন কোড ভুলে যায় তাই বিকাশ পিন লক হলে করণীয় কি এই বিষয়ে জানতে চান। এই পোস্টে বিকাশ পিন লক হলে কি করবেন তার সমস্ত বিষয় আলোচনা করার চেষ্টা করব। 

বিকাশ পিন লক হওয়ার কারণগুলো কি কি

বিকাশের বিভিন্ন সমস্যার কারণে আপনার বিকাশের পিন লক হয়ে যেতে পারে। তবে বিশেষ করে বিকাশের ভুল পিন বসানোর কারণে বিকাশের পিন লক হয়ে যায়। বিকাশ একাউন্টে পিন দিয়ে লগইন করার সময় যদি পর পর তিন বার ভুল পিন দেওয়া হয় তবে সেক্ষেত্রে সেই বিকাশ একাউন্টটি নিরাপত্তার স্বার্থে বিকশের কাস্টমার থেকে সাময়িকভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয়। 

বিকাশ পিন লক হলে করণীয় - বিকাশের পিন কোড ভুলে গেলে কি করব 

যদি কোন কারণে আপনার বিকাশের পিন কোডটি লক হয়ে যায় তবে আপনি দুটি পন্থা অবলম্বন করে বিকাশের পিন কোড রিসেট করে নিতে পারবেন এবং পূনরায় আপনি আপনার বিকাশ একাউন্টটি ব্যবহার করে লেনদেন করতে পারবেন। আপনারা অনেকেই বিকাশ পিন লক হলে করণীয় কি এই ব্যাপারে জানতে চান। মূলত Bkash Customer Care 16247 এই নাম্বারে ফোন দিয়ে এবং *২৪৭# ড্যায়াল করেও বিকাশের পিন রিসেট দিতে পারেন।

আরও পড়ুন: বিকাশের পিন কোড চেঞ্জ করার নিয়ম 

বিকাশের পিন কোড রিসেট করার পর আপনি কটি Temporary PIN মোবাইলে এসএমএসের মাধ্যমে পাবেন। এরপর Temporary PIN এর সাহায্যে USSD Menu (*247#) অথবা বিকাশ অ্যাপ থেকে বিকাশ একাউন্টের নতুন পিন সেট করুন। 

যদি আপনি দুইটি ধাপ অনুসরণ করেন তবে বিকাশের পিন সফলভাবে রিসেট করতে পারবেন নিচে তা উল্লেখ করা হলোঃ

  • আপনার বিকাশ একাউন্টের পিন রিসেট করুন।
  • বিকাশ একাউন্টের নতুন পাঁচ ডিজিটের পিন কোড সেট করুন।

আপনাদের সুবিধার্থে নিচে বিকাশ পিন লক হলে করণীয় কি তা বিস্তারিতভাবে আলোচনা করা হলো। 

বিকাশ পিন লক হলে করণীয় কি

বিকাশ পিন লক হলে করণীয় হচ্ছে বিকাশের পিন কোড রিসেট দেওয়া এবং নতুন পিন কোড সেট করা। বেশ কয়েকভাবে আপনি বিকাশের পিন রিসেট দিতে পারবেন। নিচে বিকাশের পিন রিসেট দেওয়ার পদ্ধতিগুলো দেখুন। 

  • বিকাশের কাস্টমার কেয়ারে ফোন দিয়ে বিকাশ একাউন্টের পিন রিসেট দেওয়া 
  •  স্মার্টফোন/এন্ড্রয়েড ফোন ব্যবহার করে বিকাশের পিন রিসেট দেওয়া 
  • আইফোন ব্যবহার করে বিকাশের পিন রিসেট দেওয়া
  •  বিকাশ এজেন্টে গিয়ে বিকাশের সরাসরি পিন রিসেট দেওয়া 
  • *২৪৭# কোড ড্যায়াল করে বিকাশের পিন রিসেট দেওয়া 

বিকাশ পিন পরিবর্তন করার নিয়ম কি?

উপরের যেকোন একটি পদ্ধতি অনুসরণ করে আপনার বিকাশ একাউন্টের পিন কোডটি রিসেট করে নিতে পারেন। আজকের এই পোস্টে আমি বিকাশের পিন কোড রিসেট দেওয়ার সব কয়টি নিয়ম আপনাদের সাথে আলোচনা করব।

Customer Care এর সহায়তায় Bkash PIN Reset করার নিয়ম

  • আপনার বিকাশ একাউন্টে পিন সাময়িকভাবে বন্ধ হয়ে গেলে তা কাস্টমার কেয়ারের সহয়তায় বিকাশের পিন রিসেট করে নিতে পারেন। বিকাশের কাস্টমার কেয়ার সহায়তায় পিন রিসেট করতে হলে নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করুন। 
  • প্রথমে আপনার বিকাশ নাম্বার থেকে 16247 নাম্বারে ফোন করুন এবং বিকাশ কাস্টমার সার্ভিস প্রতিনিধি কল গ্রহণ করার পর আপনি তাকে আপনার এই সমস্যার কথা জানান এবং বিকাশের পিন রিসেট করার জন্য অনুরোধ করুন। 
  • কাস্টমার সার্ভিস প্রতিনিধি আপনার ভেরিফিকেশনের জন্য বেশ কিছু প্রশ্ন করতে পারে। আপনি সব সময় সঠিক তথ্য দেওয়ার চেষ্টা করবেন। কাস্টমার প্রতিনিধি আপনার জাতীয় পরিচয়পত্র অনুসারে আপনার নাম, জন্ম তারিখ, জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর ও পিতা-মাতার নাম ও সাম্প্রতিক সময়ে যদি কোন লেনদেন করে থাকেন তার পরিমাণ জানতে চাইবেন।
  • সঠিক এবং নির্ভুল তথ্য প্রদানের জন্য আপনার হাতের কাছে জাতীয় পরিচয়পত্র রাখুন। 
  • কাস্টমার সার্ভিস প্রতিনিধি আপনি এই বিকাশ একাউন্টের মালিক এটা নিশ্চিত হওয়ার পর আপনার বিকাশ একাউন্টের পিন রিসেট করার জন্য সুযোগ দিবে। আপনার পিন কোডটি রিসেট করা হয়ে গেলে উক্ত মোবাইলে এসএমএসের মাধ্যমে একটি সাময়িক পিন নম্বর পাঠানো হবে। আপনি উক্ত পিন কোডটি সংরক্ষণ করে রাখুন। 

বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার করে বিকাশ পিন রিসেট দেওয়ার নিয়ম 

আপনি যদি এন্ড্রয়েড ফোন ব্যবহার করে থাকেন তাহলে অবশ্যই আপনি বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার করে থাকেন। কেননা বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার করে সহজেই যেকোন জায়গায় লেনদেন করা যায়। তাই আপনার যদি বিকাশ একাউন্টের পিন লক হয়ে থাকেন আর বিকাশ পিন লক হলে করণীয় কি তা জানতে চানতে তাহলে আজকের এই পোস্টের এই অংশটুকু পড়ুন। বিকাশ অ্যাপ করে বিকাশের পিন রিসেট দেওয়ার নিয়ম জানতে নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করুন। 

  • বিকাশ অ্যাপ ব্যবহার করে বিকাশের পিন রিসেট করতে চাইলে সর্বপ্রথম আপনার এন্ড্রয়েড মোবাইলের বিকাশে অ্যাপটি ওপেন করুন। এরপর ‘পিন ভুলে গিয়েছেন?’ এই অপশানে ট্যাপ করুন। নিচের ছবির মত আপনারা দেখতে পাবেন। 
  • এবার আপনি ‘পিন রিসেট করুন’ অপশনে ট্যাপ করুন। 
  • এরপর আপনার মোবাইলে একটি ভেরিফিকেশনের জন্য ওটিপি আসবে। স্বয়ংক্রিয়ভাবে ভেরিফিকেশন কোডটি যুক্ত হয়ে যাবে। এরপর আপনি “নিশ্চিত করুন” এই অপশানে ট্যাপ করুন।  
  • এরপর উল্লিখিত নিয়মনুসারে আপনের ফেস স্ক্যান করুন। 
  • ফেস ভেরিফিকেশন চলাকালে বিকাশ আপ বন্ধ না করে অপেক্ষা করুন। 
  • বিকাশ থেকে একটি অস্থায়ী পিন কোড পাঠানো হবে। আপনি ওই নাম্বারটি দিয়ে কনফার্ম বাটনে ট্যাপ করুন। 
  • এবার আপনি আপনার পছন্দমত নতুন পাঁচ ডিজিটের পিন কোড সেট করুন। 
  • ব্যাস! হয়ে গেলো বিকাশের পিন রিসেট এবার আপনি নতুন পিন কোড দিয়ে বিকাশ অ্যাপ লগইন করতে পারবেন। 

আইফোনে বিকাশ পিন রিসেট দেওয়ার নিয়ম 

যদি আপনি আইফোন ব্যবহার করে বিকাশ ব্যবহার করে থাকেন আর যদি ভুল পিন কোড প্রবেশের ফলে বিকাশ একাউন্ট লক হয়ে যায় তবে আপনি আপনার আইফোন দিয়ে বিকাশের পিন রিসেট করতে পারবেন। বিকাশের পিন রিসেট করতে নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করুন। 

  • বিকাশ অ্যাপের লগইন স্ক্রিন থেকে ‘পিন ভুলে গিয়েছেন?’-এ ট্যাপ করুন। 
  • এরপর‘পিন রিসেট’ অপশনে ট্যাপ করুন। 
  • এরপর পপ-আপ ব্যানারে দেখানো *247# ডায়াল করার বাটনে ট্যাপ করুন। 
  • এরপর My bKash Menu তে গিয়ে iPhone পিন রিসেট Confrim করার জন্য ‘8’ ট্যাপ করুন। 

বিকাশের পিন রিসেট কনফার্ম করার পর অ্যাপে ফিরে আসুন এবং পিন রিসেট করা সফলভাবে সম্পন্ন করুন।

সরাসরি বিকাশ এজেন্টে গিয়ে বিকাশ পিন রিসেট দেওয়ার নিয়ম 

বিকাশ পিন লক হলে করণীয় কি এই ব্যাপারে বিস্তারিত আরও ধারণা দিতে পারবে বিকাশের এজেন্ট। তাই আপনার বিকাশ পিন লক হয়ে গেলে বিকাশের পিন রিসেট না দিতে পারলে আপনি সরাসরি আপনার নিকটস্থ এজেন্টে গিয়ে পিন রিসেট দিতে পারেন। বিকাশ এজেন্টে যাওয়ার সময় অবশ্যই আপনার বিকাশ নাম্বার এবং জাতীয় পরিচয়পত্র নিয়ে যাবেন। কেননা জাতীয় পরিচয়পত্রের মাধ্যেমে আপনার বিকাশ একাউন্ট ভেরিফিকেশন করা হবে। বিকাশ পিন লক হলে কি করবেন তা বুঝতে পেরেছেন। 

ইউএসডি কোড ড্যায়াল করে বিকাশ পিন রিসেট দেওয়ার নিয়ম

বিকাশ পিন লক হলে করণীয় হচ্ছে বিকাশের পিন রিসেট দেওয়া। সাধারণত দুইভাবে বিকাশের পিন রিসেট দেওয়া যায় কাস্টমার কেয়ারে ফোন দিয়ে এবং ইউএসডি কোড ড্যায়াল করে। আপনি কি জানেন? কাস্টমার কেয়ারে ফোন না দিয়েও এখন আপনি বিকাশের পিন রিসেট করতে পারবেন। 

আরও পড়ুন: ফ্রিল্যান্সিং সেক্টরে কাজে লাগে এমন কয়েকটি ওয়েবসাইট

বিকাশের পিন রিসেট দেওয়ার জন্য আপনার জাতীয় পরিচয়পত্র নাম্বার, জন্মসাল এবং সর্বশেষ ৩ মাসের মধ্যে যেকোন একটি লেনদেনের পরিমাণ প্রয়োজন হবে। তবেই আপনি বিকাশ পিন রিসেট করতে পারবেন। 

বিগত তিন মাসের লেনদেন জানা থাকলে আপনি আপনার বিকাশের পিন রিসেট করে নিতে পারবেন। 

  • প্রথমে আপনার মোবাইলের ড্যায়াল প্যাডে *২৪৭# ড্যায়াল করুন। এরপর আপনার যে সিমে বিকাশ একাউন্ট খোলা রয়েছে সেটি সিলেক্ট করুন। 
  • এবার বিকাশের পিন রিসেট করার জন্য 10 নাম্বার Reset Pin এই অপশান চাপুন। 
  • এরপর আপনার বিকাশ একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করা জাতীয় পরিচয়পত্র/পাসপোর্ট/ড্রাইভিং লাইসেন্স নাম্বার এখানে বসিয়ে দিন। 
  • এরপর আপনার জন্মসাল বসিয়ে দিন। 
  • এবার আপনি বিগত ১০ দিনের মধ্যে সর্বশেষ ১০টি লেনদেন থেকে যেকোনো একটি সিলেক্ট করুন। (যদি লেনদেন না করে থাকেন তবে 7 নাম্বার চাপুন)।
  • এবার আপনার টাকার পরিমাণ বসিয়ে দিন।
  • এরপর আপনাকে অস্থায়ী পিন কনফার্মেশন এসএমএস এর মাধ্যমে পাঠানো হবে। এই এসএমএসটি সংগ্রহ করে রাখুন। 
  • এবার নতুন পিন সেট করার জন্য *২৪৭# ড্যায়াল করুন। 
  • এরপর My bKash অপশান এই অপশানে যেতে 1 সিলেক্ট করতে হবে। 
  • পিন রিসেট করতে 1 সিলেক্ট করুন।
  • এরপর এসএমএস এ পাওয়া অস্থায়ী পিন কোড টি এখানে বসিয়ে দিন।
  • এবার আপনার পছন্দমত পাঁচ ডিজিটের নতুন পিন কোড সেট করুন ।
  • আরেকবার নতুন পিন দিয়ে কনফার্ম করুন।
  • সর্বশেষ আপনার বিকাশ একাউন্টের পিন কোড সেট করা সম্পন্ন হয়েছে। 

বাটন মোবাইলে বিকাশ পিন রিসেট দেওয়ার নিয়ম 

বাটন মোবাইল ব্যবহার করে বিকাশ একাউন্ট ব্যবহার করে অনেকেই। বিকাশ পিন লক হলে করণীয় কি এটা জানা না থাকার কারণে গ্রামীণ বসবাস করা বিকাশের গ্রাহকেরা পিন রিসেট করতে পারে না। সম্মানিত গ্রামীণ ভাই-বোনেরা। আপনি যদি আজকের এই পোস্টটি পড়ে থাকেন তবে আপনার হাতে থাকা বাটন মোবাইল দিয়েই বিকাশ পিন রিসেট করতে পারবেন। বাটন মোবাইলে বিকাশ পিন রিসেট দেওয়ার নিয়মগুলো নিচে উল্লেখ করা হলো।

  • বাটন মোবাইল ব্যবহার করে বিকাশ পিন রিসেট করতে হলে আপনার মোবাইলের ড্যায়াল প্যাডে *২৪৭# ড্যায়াল করুন। এরপর আপনার যে সিমে বিকাশ একাউন্ট খোলা রয়েছে সেটি সিলেক্ট করুন। 
  • এবার বিকাশের পিন রিসেট করার জন্য 10 নাম্বার Reset Pin এই অপশান চাপুন। 
  • এরপর আপনার বিকাশ একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করা জাতীয় পরিচয়পত্র/পাসপোর্ট/ড্রাইভিং লাইসেন্স নাম্বার এখানে বসিয়ে দিন। 
  • এরপর আপনার জন্মসাল বসিয়ে দিন। 
  • এবার আপনি বিগত ১০ দিনের মধ্যে সর্বশেষ ১০টি লেনদেন থেকে যেকোনো একটি সিলেক্ট করুন। (যদি লেনদেন না করে থাকেন তবে 7 নাম্বার চাপুন)।
  • এবার আপনার টাকার পরিমাণ বসিয়ে দিন।
  • এরপর আপনাকে অস্থায়ী পিন কনফার্মেশন এসএমএস এর মাধ্যমে পাঠানো হবে। এই এসএমএসটি সংগ্রহ করে রাখুন। 
  • এবার নতুন পিন সেট করার জন্য *২৪৭# ড্যায়াল করুন। 
  • এরপর My bKash অপশান এই অপশানে যেতে 1 সিলেক্ট করতে হবে। 
  • পিন রিসেট করতে 1 সিলেক্ট করুন।
  • এরপর এসএমএস এ পাওয়া অস্থায়ী পিন কোড টি এখানে বসিয়ে দিন।
  • এবার আপনার পছন্দমত পাঁচ ডিজিটের নতুন পিন কোড সেট করুন ।
  • আরেকবার নতুন পিন দিয়ে কনফার্ম করুন।
  • সর্বশেষ আপনার বিকাশ একাউন্টের পিন কোড সেট করা সম্পন্ন হয়েছে। 

শেষ কথাঃ বিকাশ পিন লক হলে করণীয় নিয়ে

বাংলাদেশের বহুল জনপ্রিয় মোবাইল ব্যাংক হলো বিকাশ। ভুল পিন কোড প্রবেশের ফলে আমাদের বিকাশের পিন লক হয়ে যেতে পারে। বিকাশ পিন লক হলে করণীয় সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য দিয়ে আজকের এই পোস্টটি সাজানো হয়েছে। সুপ্রিয় পাঠক, আজকে আমি আপনাদের সাথে বিকাশ পিন লক হলে করণীয় কি, বিকাশ পিন রিসেট দেওয়ার নিয়ম নিয়ে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করেছি। আপনার যদি বিকাশ একাউন্ট লক হয়ে যায় তবে আজকের এই পোস্টটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়ুন। তাহলে বিকাশ পিন লক হলে আপনার করণীয় কি তা জানতে পারবেন। আজকের এই পোস্টটি আপনার কাছে তথ্যবহুল মনে হলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে পারেন। ধন্যবাদ।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url